Main Menu

‘কঠিন ছয়টি মাসের’ মুখোমুখি ইউরোপ

করোনা সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউয়ে বিপর্যস্ত ইউরোপ ‘কঠিন’ ছয়টি মাসের মুখোমুখি হতে যাচ্ছে বলে সতর্ক করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। গত সপ্তাহে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মহাদেশটিতে ২৯ হাজারের বেশি মানুষের মৃত্যুও হয়েছে বলে জানিয়েছে সংস্থাটি।

প্রথম দফা সংক্রমণের প্রভাব সামাল দিতে থাকা ইউরোপীয় দেশগুলোতে নতুন করে বাড়ছে করোনায় আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা।

ডেনমার্কের রাজধানী কোপেনহেগেনে বৃহস্পতিবার এক অনুষ্ঠানে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ইউরোপীয় অঞ্চলের পরিচালক হ্যানস ক্লুজ বলেন, গত দুই সপ্তাহে ইউরোপে করোনায় মৃতের সংখ্যা ১৮ শতাংশ বেড়েছে। অঞ্চলটিতে দৈনিক প্রায় সাড়ে ৪ হাজার মানুষ প্রাণ হারাচ্ছে বলে জানান তিনি। করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় এর প্রভাব পড়ছে অঞ্চলটির দেশগুলোর স্বাস্থ্য ব্যবস্থার ওপর। ক্লুজ জানান, টানা গত ১০ দিন ধরে ফ্রান্সের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রগুলোর ৯৫ শতাংশের বেশি পূর্ণ রয়েছে। সুইজারল্যান্ডের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রগুলোর শতভাগ পূর্ণ রয়েছে।

ক্লুজ বলেন, ‘আমরা জানি আসন্ন শীতকালে ভ্যাকসিন পেতে বিলম্ব হয়ে যাবে, ফলে আমাদের সত্যিকার অর্থে যৌথভাবেই কঠোর হতে হবে আর যেসব পদক্ষেপে কাজ হচ্ছে বলে জানতে পারছি সেগুলো দীর্ঘ মেয়াদে বাস্তবায়ন করতে হবে। তার পরও আমাদের খুবই সতর্ক থাকতে হবে, কারণ, আমরা দেখতে পেয়েছি স্বাস্থ্য ব্যবস্থা খুব দ্রুতই ভেঙে পড়তে পারে।’

সাম্প্রতিক লকডাউনেও বেশির ভাগ ইউরোপীয় দেশ স্কুল খোলা রাখার প্রতি ইঙ্গিত করে ডব্লিউএইচও কর্মকর্তা ক্লুজ বলেন, এসব দেশকে অবশ্যই নিরাপদ শিক্ষা নিশ্চিত করতে হবে।

করোনার দুইটি ভ্যাকসিন কার্যকর হওয়ার খবর নতুন মাত্রা যোগ করেছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘ভ্যাকসিন কোভিড-১৯ সম্পূর্ণ থামাতে পারবে না আর আমাদের সব প্রশ্নের জবাবও দিতে পারবে না, তার পরও ভাইরাসটি মোকাবিলার লড়াইয়ে এটি চরম আশা জাগিয়েছে। বিবিসি, সিএনএন






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *