Main Menu

দক্ষিণ সুরমা উপজেলার মেট্রোসিটি এলাকাকে সিলেট সিটি কর্পোরেশনের অন্তর্ভুক্তির দাবিতে বিভিন্ন সংগঠনের স্মারকলিপি প্রদান

দক্ষিণ সুরমা উপজেলার মেট্রোসিটি এলাকাকে সিলেট সিটি কর্পোরেশনের অন্তর্ভুক্তির দাবিতে বিভিন্ন সংগঠনের স্মারকলিপি প্রদান করা হয়েছে। ৭ সেপ্টেম্বর সোমবার সকালে সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ও সিলেটের জেলা প্রশাসকের কাছে পৃথক পৃথক ভাবে এই স্মারক লিপি প্রদান করা হয়।

দক্ষিণ সুরমা সমাজ কল্যাণ সমিতি:
দক্ষিণ সুরমা এলাকাবাসীর পক্ষে দক্ষিণ সুরমা সমাজ কল্যাণ সমিতির স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয় দক্ষিণ সুরমা সিলেটের প্রবেশদ্বার এবং ইতিহাস ঐতিহ্যের সমৃদ্ধ একটি জনপদ। এক সময় ১৭ ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত সিলেট সদর উপজেলা ও দক্ষিণ সুরমা একীভূত এলাকা ছিল। প্রশাসনিক বিবর্তনে সদর উত্তরকে সিলেট সদর উপজেলা ও সদর দক্ষিণকে দক্ষিণ সুরমা উপজেলায় রূপান্তরিত করা হয়। বর্তমানে ১০টি ইউনিয়ন নিয়ে দক্ষিণ সুরমা উপজেলা গঠিত। প্রথম সিলেট পৌরসভা গঠনের সময় দক্ষিণ সুরমা উপজেলার বরইকান্দি ইউনিয়ন ও কুচাই ইউনিয়নের কিছু উন্নত এলাকার অংশ নিয়ে ২৫, ২৬ ও ২৭নং এই ৩টি ওয়ার্ড গঠন করা হয়। সিলেট পৌরসভা পরবর্তীতে সিলেট সিটি কর্পোরেশনে রূপান্তরিত হয়। সিলেটের জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে গত ০৯ আগস্ট ২০২০ খ্রিঃ পত্রিকায় গণবিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে নতুন করে সিলেট সিটি কর্পোরেশনের সীমানা বর্ধিতকরণ প্রসঙ্গে জানানো হয় ।

নতুনভাবে সিলেট সিটি কর্পোরেশনের সীমানা বর্ধিতকরণে মোল্লার গাওঁ ইউনিয়নের তেলিরাই থেকে কমলগঞ্জ মকন দোকানসহ অর্ধ কিলোমিটার, বরইকান্দি ইউনিয়নের প্রায় পুরো অংশও কুচাই ইউনিয়নের আংশিক অংশ অন্তর্ভুক্তি করা হয়েছে। সিটি কর্পোরেশনের এই বর্ধিতকরণে দক্ষিণ সুরমার সাথে অতীতের মতো বৈষম্য করা হয়েছে। সদর উপজেলা তথা উত্তর সুরমার বৃহৎ অংশ সিলেট সিটি কর্পোরেশনের অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। সেই হিসাবে দক্ষিণ সুরমার সামান্য অংশ সিটি কর্পোশেনের অন্তর্ভুক্তি করা হয়েছে।

সময়ের বিবর্তনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ‘গ্রাম হবে শহর’ এই শ্লোগানকে সামনে রেখে উত্তর সুরমার সাথে সামঞ্জস্য রেখে দক্ষিণ সুরমার মেট্রোসিটির সকল এলাকাকে সমান ভাবে সিলেট সিটি কর্পোরেশনের সীমানার অন্তর্ভুক্তি করা এখন সময়ের দাবি।

দক্ষিণ সুরমা জনগণ ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলন,মহান ভাষা আন্দোলন,স্বাধীনতা যুদ্ধ,সিলেট বিভাগ আন্দোলনসহ সকল ন্যায়সঙ্গত আন্দোলনসহ রাজনৈতিক ও সামাজিক কর্মকান্ডে সম্মুখ সারিতে থেকে আন্দোলন সংগ্রাম করেছে। এই এলাকার বৃহৎ সংগঠন দক্ষিণ সুরমা সমাজ কল্যাণ সমিতি ১৯৮৯ সালে গঠন করা হয়েছিল এবং ১৯৯৫ সালে সমাজসেবা বিভাগের ৪০১/৯৫ রেজিস্ট্রেশন লাভ করে। সমিতির কেন্দ্রীয় কমিটিসহ দক্ষিণ সুরমার ১০টি ইউনিয়নে রয়েছে সুসংঘটিত ইউনিয়ন কমিটি। এসব কমিটির মাধ্যমে সমাজ উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখে যাচ্ছে। দক্ষিণ সুরমার আপামর সচেতন জনগণ রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, সামাজিক, পেশাজীবি সংগঠনের নেতৃবৃন্দ মনে করেন সিলেট সিটি কর্পোরেশন কলেবর বর্ধিত করলে সরকারের বড় অংকের রাজস্ব আদায়ও উন্নয়ন বাজেট দেশের অন্যান্য সিটি কর্পোরেশনের মতো আসা সম্ভব । তাতে দেশের অন্যান্য সিটি কর্পোরেশনের মতো নাগরিক সুবিধা বেশি হারে জনগণ ভোগ করতে পারবে। দেশ এগিয়ে যাবে উন্নয়নের পথে, জননেত্রী প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নত সমৃদ্ধ বাংলাদেশের গঠনের দিকে। তাই দক্ষিণ সুরমার জনগণের পক্ষে দক্ষিণ সুরমা সমাজ কল্যাণ সমিতি উত্তর সুরমার সাথে সামঞ্জস্য রেখে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ(এস.এম.পি)’র আওতাধীন দক্ষিণ সুরমা ও মোগলা বাজার থানা এলাকাকে সিলেট সিটি কর্পোরেশনের অন্তর্ভুক্ত করার জোর দাবী জানানো হয়।

স্মারকলিপি প্রদানকালে উপস্থিত ছিলেন দক্ষিণ সুরমা সমাজ কল্যাণ সমিতির কেন্দ্রীয় সভাপতি সিলেটের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী হাজী মোহাম্মদ ফারুক আহমদ,সহ সভাপতি সিনিয়র সাংবাদিক হাজী এম আহমদ আলী,বিশিষ্ট ব্যবসায়ী হাজী আব্দুস ছত্তার,সাধারণ সম্পাদক ও সিলেট জেলা পরিষদ সদস্য রোটারিয়ান মোঃ মতিউর রহমান মতি,সহ সাংগঠনিক সম্পাদক নূরুজ্জামান, কোষাধ্যক্ষ মোঃ আলী আহমদ খান, দফতর সম্পাদক মোস্তাক হোসেন, সদস্য তপন চন্দ্র পাল প্রমুখ। স্মারকলিপির অনুলিপি-সিলেট-১ আসনের সংসদ সদস্য ও পররাষ্ট্র মন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন, স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রনালয়ের সচিব, উপ পরিচালক, সিলেট জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ পরিচালক বরাবরে প্রেরণ করা হয়েছে।

সদর দক্ষিণ নাগরিক কমিটি:

এদিকে একই দাবীতে ৭ সেপ্টেম্বর সোমবার স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী বরাবরে পৃথক স্মারকলিপি সিলেটের জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রদান করেছে সদর দক্ষিণ নাগরিক কমিটি। কমিটির সভাপতি ও মোল্লার গাঁও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব শেখ মোঃ মকন মিয়া ও সাধারণ সম্পাদক ও সিলেট সিটি কর্পোরেশনের ২৭ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ আজম খান স্বাক্ষরিত স্মারক লিপিতে দক্ষিণ সুরমার ১০টি ইউনিয়নকে সিলেট সিটি কর্পোরেশনের অন্তর্ভূক্ত করে সরকারী নির্দেশনা জারির জন্য জোর দাবী জানানো হয়।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *