Main Menu

নতুন উদ্যোক্তাদের প্রতি ফাহিম যা বলেছিলেন

ফাহিম সালেহ মাত্র ১৫ বছর বয়সে বানিয়ে ফেলেছিলেন ‘টিন-হ্যাংআউট ডটকম’ নামে একটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম। সেই ধারাবাহিকতায় ২০১৫ সালে হুসাইন এম ইলিয়াস এবং শিফাত আদনানকে নিয়ে প্রতিষ্ঠা করেন বাংলাদেশের বৃহত্তম রাইড শেয়ারিং সার্ভিস প্রতিষ্ঠান ‘পাঠাও’। এর সফলতা দেখে ২০১৭ সালে নাইজেরিয়ায় প্রতিষ্ঠা করেন রাইড শেয়ারিং সার্ভিস প্রতিষ্ঠান ‘গোকাডা’। সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের ম্যানহাটনে নৃশংস হত্যাকাণ্ডের শিকার হন এই তরুণ উদ্যোক্তা। মৃত্যুর আগ পর্যন্ত খুবই সাধারণ জীবন কাটিয়েছেন তিনি। তার সোশ্যাল মিডিয়া পোস্টিংগুলো ছিল সাধারণত উদ্যোক্তা এবং তার ব্র্যান্ড সম্পর্কে। এমনকি তার শেষ টুইট ও ইউটিউব ভিডিওটি ছিল গোকাডা নিয়েই। নতুন উদ্যোক্তাদের প্রতি তার সেই সকল দিক-নির্দেশনা নিয়ে আমাদের এই আয়োজন। লিখেছেন জাহিদ হাসান দিপু

মাত্র ৩৩ বছর বয়সেই নিজেকে সফল ব্যবসায়ী হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছিলেন ফাহিম। শূন্য থেকে সাফল্যের এই পথচলা তাকে শিখিয়েছে অনেক কিছু। আর সেই প্রতিচ্ছবি দেখা যায় তার ইন্টারভিউ আর ব্লগগুলোতে। তরুণ উদ্যোক্তা আর নিজ ব্র্যান্ড নিয়েই লিখতে আর কথা বলতে পছন্দ করতেন তিনি। মিডিয়াম ডটকমে ফাহিমের সামপ্রতিক ব্লগগুলোতে ওঠে এসেছে গোকাডা উদ্যোক্তা হিসেবে তার আইডিয়া-ভাবনা এবং নতুন উদ্যোক্তাদের জন্য পরামর্শ।

নিজের করা কয়েকটি ব্লগে ফাহিম সালেহ নতুন উদ্যোক্তাদের জন্য দিয়েছেন কিছু পরামর্শ। নতুন উদ্যোক্তাদের জন্য করা ব্লগগুলোতে বারবারই তিনি প্রাধান্য দিয়েছেন কাজের ওপর। মিডিয়াম ডটকমে পোস্ট করা একটি ব্লগে তিনি লিখেছেন, আপনার কাছে সুন্দর একটি ব্যবসার আইডিয়া থাকতেই পারে, তবে শুধু সেটা আপনাকে সফল উদ্যোক্তা বানিয়ে ফেলছে না। আপনার কাছে ভালো কোনো ব্যবসার আইডিয়া থাকার অর্থ, আপনি নতুন একটি ব্যবসার মাত্র ১ শতাংশ সম্পন্ন করেছেন। মার্কেট রিসার্চ, দল তৈরি, বিনিয়োগ, সময়, সবকিছু নিয়ে বাকি ৯৯ শতাংশ।

ওই ব্লগে তিনি পরামর্শ দেন— আপনার ব্যবসার আইডিয়া চুরি হওয়া নিয়ে কখনো ভয় পাবেন না। সব ধরনের সক্ষমতা থাকলেও তাদের সফলতার সম্ভাবনা খুবই কম। কারণ ব্যবসার আইডিয়া একটা সূচনা মাত্র। আপনার প্রতিদ্বন্দ্বী কি করছে, সেটা নিয়ে কখনো প্রতিক্রিয়া দেখাবেন না।

নতুন উদ্যোক্তাদের প্রতি ফাহিম যা বলেছিলেনতার মতে—এক, আপনার ব্যবসার ছোট ছোট কাজগুলো বাইরে থেকে করিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করুন। বিভিন্ন অনলাইন সাইটে এখন খুব সহজেই মানসম্পন্ন ফ্রিল্যান্সার পাওয়া যায়, যারা অর্থের বিনিময়ে আপনার চাহিদামতো কাজ করে দেবে। এতে আপনার সময় এবং শ্রম দুটোই বাঁচবে। দুই, মানুষের কাছে যান, সাহায্য চান। সাহায্যের জন্য কারও কাছে যেতে ভয় পাবেন না। হয়তো ইতিবাচক সাড়া দিয়ে তারা আপনাকে অবাক করে দেবেন। তিন, আপনার চিন্তাধারার সঙ্গে মিলে যায়, এমন মানুষদের পাশে রাখুন। নতুন ব্যবসার ক্ষেত্রে সঠিক অনুপ্রেরণা ও সহায়ককর্মী খুঁজে পাওয়াটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। চার, নতুন ব্যবসার ক্ষেত্রে ভাবমূর্তিই সব। ব্যবসা যেটাই হোক, ব্যবসার ভাবমূর্তির পেছনে বিনিয়োগ করুন। কারণ, মানুষ আপনাকে বা আপনার ব্যবসাকে কীভাবে নিচ্ছে সেটাই সব।

টিন-হ্যাংআউট ডটকম থেকে গোকাডা, পুরোটা পথজুড়েই শিখেছেন ফাহিম সালেহ। ব্যবসার আইডিয়া, বিনিয়োগ, উপার্জনসহ প্রতিটি ক্ষেত্রেই সেই শিক্ষাকেই কাজে লাগিয়েছেন তিনি। নিজের ব্লগগুলোতে দেওয়া পরামর্শকে শক্তিশালী করতে তাই সেই অভিজ্ঞতাকেই উদাহরণ হিসেবে টেনেছেন বারবার।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *