Main Menu

শরীরে গোবর মেখে করোনার চিকিৎসা, অন্য রোগ ছড়ায় দাবি চিকিৎসকদের

অনলাইন ডেস্ক :

মহামারি করোনাভাইরাসের সংক্রমণ থেকে রক্ষায় ও আক্রান্ত রোগীর চিকিৎসায় গোবার এবং গোমূত্রের কার্যকারিতা নিয়ে সতর্ক করেছেন ভারতের চিকিৎসকেরা। তাদের দাবি, ভাইরাসটি প্রতিরোধে গোবরের কার্যকারিতা নিয়ে বিজ্ঞানভিত্তিক কোনো প্রমাণ নেই। বরং এর প্রয়োগে শরীরে অন্যান্য রোগ ছড়ানোর আশঙ্কা রয়েছে।

সমগ্র ভারতে করোনাভাইরাসের কারণে ব্যাপক সংক্রমণে বিপর্যয় সৃষ্টি হয়েছে। অক্সিজেনসহ নানাবিধ সংকটে ভেঙে পড়েছে দেশটির চিকিৎসা ব্যবস্থাও। হাসপাতালগুলোতে প্রয়োজনীয় বেড, অক্সিজেন ও ওষুধের সংকট প্রকট আকার ধারণ করেছে। দেশটিতে যেন মৃত্যুর মিছিল চলছেই। প্রতিদিনই বিপুল সংখ্যক মানুষ নতুন করে ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পাশাপাশি দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যাও রয়েছে চার হাজারের আশপাশেই।

এদিকে, ভারতে একদিনে আরও তিন হাজার ৮৭৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার (১১ মে) এক প্রতিবেদনে তথ্য জানিয়েছে টাইমস অব ইন্ডিয়া।

তবে আগের দিনের তুলনায় ভারতে সংক্রমণ কিছুটা কমে নেমে এসে সাড়ে তিন লাখের নিচে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে নতুন করে করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন ৩ লাখ ২৯ হাজার ৯৪২ জন। যা সোমবারের তুলনায় প্রায় ৩৭ হাজার কম। সর্বশেষ এই পরিসংখ্যান নিয়ে মহামারির শুরু থেকে ভারতে করোনায় আক্রান্তের মোট সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২ কোটি ২৯ লাখ ৯২ হাজার ৫১৭ জনে।

গত শনিবার ও রবিবার করোনায় আক্রান্ত হয়ে ভারতে দৈনিক মৃত্যু ছাড়িয়েছিল ৪ হাজারের গণ্ডি। তবে সোমবার সেই সংখ্যা বেশ কিছুটা কমে এলেও মঙ্গলবার ফের বেড়েছে দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যা। দেশটিতে মোট মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২ লাখ ৪৯ হাজার ৯৯২ জনে।

এমন পরিস্থিতির মধ্যেই ভারতের পশ্চিমাঞ্চলীয় রাজ্য গুজরাটের বেশ কিছু অঞ্চলের মানুষ সপ্তাহে একদিন গোমূত্র বা গোবর শরীরে মাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তাদের বিশ্বাস, শরীরে গোমূত্র বা গোবর মাখলে রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পায় বা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলেও সুস্থ হতে সহায়ক হয়। তাদের দাবি, গোবরে ভেষজ এবং জীবাণুনাশক গুণ রয়েছে।
শরীরে গোবর মেখে করোনার চিকিৎসা, অন্য রোগ ছড়ায় দাবি চিকিৎসকদের

একটি ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানিতে অ্যাসোসিয়েট ম্যানেজার পদে কাজ করেন গৌতম মনিলাল বরিসা। তিনি দাবি করেন, ‘এখানে গোবরে গোসল করতে আসেন চিকিৎসকরা। এর মাধ্যমে শরীরের রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। চিকিৎসককরা বিশ্বাস করেন- গোবরে গোসল করে করোনা রোগীদের কাছে গেলে কোনো ভয়ই নেই।’

এমনকি গতবছর মহামারি ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হওয়ার পর গোবার ও গোমূত্র মেখে গোসল করার কারণেই তিনি সুস্থ হয়েছিলেন বলে দাবি করেন মনিলাল বরিসা।

তবে ভারতীয় চিকিৎসকদের দাবি, চিকিৎসা বিজ্ঞানে স্বীকৃত নয় এমন যেকোন ধরনের ভ্রান্ত চিকিৎসা পদ্ধতির কারণে শারীরিক সুরক্ষা হুমকির মুখে পড়াসহ অনেক ধরনের স্বাস্থ্য জটিলতা সৃষ্টি করতে পারে।

ইন্ডিয়ান মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের জাতীয় কমিটির সভাপতি ড. জেএ জয়লাল বলেন, ‘গোবর ও গোমূত্র যে করোনাভাইরাস মোকাবিলায় শরীরে রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে, এ বিষয়ে কোনো বৈজ্ঞানিক ভিত্তি নেই। যারা এটা করেন, এটা কেবলই তাদের বিশ্বাসের ওপর ভিত্তি করেই করেন। এসব জিনিস ব্যবহারে যেকোন মানুষ জটিল স্বাস্থ্য ঝুঁকির মুখে পড়তে পারেন। এছাড়া পশুদের শরীর থেকে মানুষের শরীরে নানা রোগ-বালাই ছড়িয়ে যাওয়ার ঝুঁকি তো রয়েছেই।’






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *