Main Menu

কানাডায় বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালন

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস কানাডায় যথাযোগ্য মর্যাদার সঙ্গে পালিত হয়েছে।

এ উপলক্ষে কানাডার অটোয়াস্থ বাংলাদেশ হাই কমিশন বিশেষ আলোচনা ও একটি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। কাউন্সেলর মো শাকিল মাহমুদ অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন।

অনুষ্ঠানের শুরুতে দিবস উপলক্ষে ঢাকা হতে প্রদত্ত মহামান্য রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর বাণী পড়ে শুনান মিশনের মিনিস্টার মিয়া মো. মাইনুল কবির ও কাউন্সেলর অর্পণা রাণী পাল। এরপর দিবসটি উপলক্ষে একটি বিশেষ আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়।

আলোচনা অনুষ্ঠানে মিশনের মিনিস্টার দেওয়ান হোসনে আইয়ুব, উপ হাইকমিশনার চিরঞ্জীব সরকার এবং শেষে অনুষ্ঠানের সভাপতি হাইকমিশনার ড. খলিলুর রহমান বক্তব্য রাখেন।

আলোচনা সভায় সকল বক্তারা এ দিবসের গুরুত্ব তুলে ধরেন এবং বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠার অঙ্গীকার করেন।

হাই কমিশনার তার বক্তব্যে বলেন, বঙ্গবন্ধু ছাড়া বাংলাদেশকে কল্পনা করা যায় না। বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের মধ্য দিয়েই মূলত বিজয়ের উৎসব পরিপূর্ণতা পায়। আলোচনা অনুষ্ঠান শেষে একটি সংক্ষিপ্ত সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হয়।

এদিকে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস ভার্চুয়ালি আলোচনা সভার আয়োজন করে কানাডার অন্টারিও আওয়ামী লীগ। এই দিবস উপলক্ষে তারা টরেন্টোতে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নির্মাণের বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে থাকেন কানাডাস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের হাইকমিশনার ড. খলিলুর রহমান। সভাপতিত্ব করেন অন্টারিও আওয়ামী লীগের সভাপতি মোস্তফা কামাল। অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন সাধারণ সম্পাদক লিটন মাসুদ ও সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ চৌধুরী বিপ্লব।

আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন বিশেষ অতিথি ড. মোজাম্মেল খান, ড. আব্দুল আউয়াল, কানাডা আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম মাহমুদ মিয়া, আওয়ামী লীগ নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সালাম, সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মুহিবুর রহমান, তোফাজ্জল আলী, অন্টারিও আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদের মিলু, যুগ্ম সম্পাদক নীরু চাকলাদার, বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি আমিন মিয়া, বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের সভাপতি ড. হুমায়ূন কবির এবং আরও অনেকেই।

অপরদিকে ক্যালগেরিতেও এক ভার্চুয়াল আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলবার্টা বঙ্গবন্ধু পরিষদের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত এ আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন আলবার্টা বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি আব্দুল্লা রফিক। অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনা করেন মাউন্ট রয়েল ইউনিভার্সিটির প্রফেসর তাশফীন হোসাইন তপু এবং সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন ছিলেন বঙ্গবন্ধু পরিষদের সহ-সভাপতি মোহাম্মদ কাদির।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *