Main Menu

ওয়ার্কার্স পার্টি সিলেট জেলা কমিটির উদ্যোগে কমরেড আবুল হোসেন স্মরণে শোক সভা অনুষ্ঠিত

বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির কেন্দ্রীয় সভাপতি কমরেড রাশেদ খান মেনন এমপি বলেছেন, কমরেড আবুল হোসেন একজন চিরবিপ্লবী নেতা ছিলেন। তিনি পার্টির তৃণমূল থেকে কাজ করে কেন্দ্রীয় সদস্য হয়েও অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন। তিনি পার্টির দুর্দিনের কান্ডারী ছিলেন। সিলেটে পার্টির প্রতিষ্ঠাকাল থেকে মৃত্যুর আগ পর্যন্ত একজন কর্মী ছিলেন। দেশে যখন জামাত-শিবিরের উগ্রতার সিলেটের বাম রাজনীতিতে গুরুত্ব ভূমিকা পালন করেছেন। কাজেই আবুল হোসেন ছিলেন ওর্য়াকার্স পার্টির চিরবিপ্লবী নেতা। তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশের রাজনীতি এখন আর রাজনীতিবিদদের হাতে নেই, তার মুষ্টিমেয় কিছু লোকের হাতে চলে গেছে। এ কথা আমি জাতীয় সংসদের বার বার বলেছি। রাষ্ট্রের ক্ষমতা আজ সেইসব লোকেদের কাছ থেকে জনগণের কাছে ফিরিয়ে দিতে হবে। দেশে বর্তমানে যে কুচক্রি মহলের রাজনীতি চলছে এতে করে স্পষ্ট বুঝা যায় রাষ্ট্র পতনের দিকে ধাবিত হচ্ছে। একদিকে ধর্ষণ, খুন, দূর্নীতি দুর্বিত্তায়ন করে ক্ষমতার অপব্যবহার চলছে। অন্যদিকে উগ্রঅমৌলবাদের আস্ফালনে এদেশের স্বাধীনতা মুক্তিযোদ্ধের চেতনার সাংস্কৃতিক বিনষ্টের জন্য ভাস্কর্য নাম ব্যবহার করে দেশের অস্থিতিশীল তা সৃষ্টি করছেন। ইতিহাস ঐতিহ্য এদেশের সূচনালগ্ন থেকে চলে আসছে। ভাস্কর্য নিয়ে যে আন্দোলন চলছে তা সম্পূর্ণ রাজনীতি ইস্যু, ধর্মীয় নয়।

তিনি ২৭ ডিসেম্বর রোববার বিকেল ৩টায় বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি জেলার সাবেক সভাপতি কমরেড আবুল হোসেন স্মরণে জেলা কমিটির উদ্যোগে শোক সভায় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।

বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি সিলেট জেলা কমিটির সভাপতি সিকান্দর আলীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক ইন্দ্রানী সেন শম্পার পরিচালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, গণতান্ত্রিক পার্টির কেন্দ্রীয় সভাপতি ব্যারিস্টার আরশ আলী, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সিলেট জেলার সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক জাকির হোসেন, জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী, সাম্যবাদী দলের কেন্দ্রীয় পলিট ব্যুরোর সদস্য ধীরেণ সিংহ, সিলেট জেলা ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক আফরোজ আলী, বাসদ মাক্সবাদী সিলেট জেলার আহবায়ক কমরেড উজ্জ্বল রায়, বাসদ সিলেট জেলার সমন্বয়ক কমরেড আবুজাফর, গণফোরাম সিলেট জেলার সভাপতি অ্যাডভোকেট আনসার খাঁন, জালালাবাদ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের পরিচালক আরমান আহমেদ শিপলু।

অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন, জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশন সিলেটের হিমাংশু মিত্র, সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর নাজনীন আক্তার কণা, উদীচী সিলেট জেলার সভাপতি এনায়েত হাসান মানিক, মহানগর সংবাদপত্র হকার্স সমবায় সমিতির সভাপতি আব্দুস সালাম, বাংলাদেশ যুব মৈত্রী সিলেট জেলার যুগ্ম আহবায়ক আব্দুলাহ খোকন, বাংলাদেশ ছাত্র মৈত্রী সিলেট জেলার সভাপতি মাসুদ রানা চৌধুরী, সাংবাদপত্র এজেন্ট হাফিজুল্লাহ প্রমুখ।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *